১৫ জন শিক্ষার্থীর জন্য ১৮ জন শিক্ষক-কর্মচারীর মাসে বেতন ৩ লাখ ৩২৯৭০ টাকা

রাজধানী টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার একটি দাখিল মাদ্রাসায় ১৫ জন শিক্ষার্থীর উপস্থিতি দিয়ে ১৮ জন শিক্ষক-কর্মচারী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী মোনোয়ারুল হাসানকে ম্যানেজ করে অনৈতিকভাবে ৩,৩২,৯,৭০ টাকা প্রতিমাসে বেতনভাতা উত্তোলন করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার পর থেকে ছাত্র-ছাত্রী চাহিদামত ভর্তি না হলেও এমপিও টিকানোর জন্য প্রয়োজন মাফিক শিক্ষার্থী ম্যানেজ করে পরীক্ষায় বিশেষ সুবিধা দিয়ে তাদেরকে পাস করানো হয়।মাদ্রাসার প্রত্যেক শ্রেণীতে ২৫/৩০ জন শিক্ষার্থীর নাম থাকলেও অধিকাংশ নামই ভূয়া ও কাল্পনিক।অন্য স্কুলে পড়াশোনা করে এমন শিক্ষার্থীদের নাম খাতায় লিখে তাদেরকে প্রায় শতভাগ হাজির দেখানো হয় বলে কয়েকজন শিক্ষক স্বীকার করেছেন।

সম্প্রতি মাদ্রাসায় গিয়ে জানা যায়,কালাই উপজেলার আহম্মেদাবাদ ইউনিয়নের বোড়াই গ্রামে বোড়াই রাহিমা খাতুন দাখিল মাদ্রাসাটি ১৯৮০ সালে স্থাপিত হয়ে পাঠদানের অনুমতি পায়। প্রতিষ্ঠানটি ১৯৯৩ সালে এমপিওভুক্ত হয়। ১৮ জন শিক্ষক কর্মচারী নিয়ে চলছে পাঠদান। শিক্ষকদের দাবি মাদ্রাসায় শিক্ষার্থী সংখ্যা যথেষ্ট রয়েছে। কিন্তু শ্রেণিকক্ষে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, ১ম থেকে ৩য় শ্রেণির কক্ষে নেই কোনো শিক্ষার্থী। একটি কক্ষের এক পাশের বেঞ্চে বসে আছে পঞ্চম শ্রেণির ২জন শিক্ষার্থী,অন্য পাশের বেঞ্চে চতুর্থ শ্রেণির ৩ জন শিক্ষার্থী। ইবতেদায়ি শাখার চারটি ও দাখিল ১০ম শ্রেণিকক্ষ একদম ফাঁকা। দাখিল ৯ম শ্রেণিতে ২ জন,৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ৩ জন, ৭ম শ্রেণিতে ২ জন এবং ৮ম শ্রেণিতে ৩ জন শিক্ষার্থীর দেখা মেলে। উপস্থিত এসব শিক্ষার্থীদের কেউই বাংলা বা ইংরেজি রিডিং ভালমত পড়তে পারেনা। শিক্ষকরাও নিয়মিত ক্লাস নেন না। প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৮/১০ শিক্ষক অনুপস্থিত থাকেন। ক্লাস চলাকালীন সময়ে শিক্ষকরা বসে ফ্যানের হাওয়া লেগে স্থানীয় রাজনীতিসহ নানা খোসগল্পে মেতে থাকেন আর বহালতবিয়তে ১৮ জন শিক্ষক- কর্মচারি প্রতিমাসে সরকারের কোষাগার থেকে ৩,৩২,৯,৭০ টাকা বেতনভাতা হিসাবে তুলছেন। উক্ত মাদ্রাসার তথ্যমতে,খাতা কলমে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা প্রায় ২৫০ জন। তারমধ্যে কাগজে কলমে প্রতিদিন উপস্থিতি গড়ে ২০ থেকে ৩০ জন শিক্ষার্থী দেখানো হয়।

বিজ্ঞাপন

এলাকার বাসিন্দা ইউপি সদস্য ফেরদৌস হোসেন বলেন,সভাপতির মায়ের দানকৃত জায়গার উপর মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় স্বজনপ্রীতির মাধ্যমে তাঁর নিজের ভাই-ভাতিজাকে চাকুরি দিয়ে মাদ্রাসার পড়ালেখার পরিবেশ নষ্ট করেছে। কিন্তু এই মাদ্রাসায় দিনের পর দিন কোনো শিক্ষার্থী উপস্থিত না থাকলেও শিক্ষকরা ঠিকই বেতন উত্তোলন করছেন।

মাদ্রাসার (সুপার) শাহজাহান আলি সত্যতা স্বীকার করে বলেন,আগে অনেক শিক্ষার্থী ছিল।কমিটির সভাপতির সঙ্গে গ্রামের লোকজনের বিরোধ থাকায় তাদের সন্তানদের এই মাদ্রাসায় পাঠাতে চায় না। দূরের কিছু শিক্ষার্থী ভর্তি করে এখান থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহন করিয়ে বিদ্যালয়টি তিনি টিকিয়ে রেখেছেন।খাতা-কলমের সাথে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি মিল না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

উক্ত মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও আহম্মেদাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান আলি আকবর বলেন,আমরা মাদ্রাসার জন্য জমি দান করেছি, যাতে এলাকার সন্তানরা পড়ালেখা শিখতে পারে।কিন্তু এলাকার লোকজন রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে আমার উপর রাগ করে তাদের সন্তানদের মাদ্রাসায় পাঠায় না।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী মোনোয়ারুল হাসান বলেন, আমরা ইতোপূর্বে মাদ্রাসা পরিদর্শনে গিয়ে ৮জন শিক্ষার্থীর উপস্থিতি পেয়ে সর্তক করলে মাদ্রাসা সুপার ও শিক্ষকরা শিক্ষার্থী উপস্থিতি বৃদ্ধির বিষয়ে আশ্বস্ত করেছিলো কিন্তু তারা বারবার গাফলতি করেছে।

শিক্ষার্থীর উপস্থিতি পর্যাপ্ত না থাকলে কোনো প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত থাকতে পারে না। আমরা আবারও তদন্ত করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে মাদ্রাসার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ পাঠাব।

কালাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবুল হায়াত বলেন,উক্ত মাদ্রাসার এমন নাজুক অবস্থার বিষয়ে কেউ আমাকে অবগত করেনি। তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল rajdhanitimes24.com এ লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয়- মতামত, সাহিত্য, ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার ছবিসহ লেখাটি পাঠিয়ে দিন rajdhanitimes24@gmail.com  এই ঠিকানায়।

শীর্ষ সংবাদ:
সঞ্জীবা গার্ডেনের সেপটিক ট্যাংকে মিলল ৪ দলা মাংস এমপি আনারের মরদেহের মাংস উদ্ধারের দাবি অপরাধী হলে আজিজ-বেনজীরের বিচার হবে: ওবায়দুল কাদের বিমানের নতুন এমডি জাহিদুল ইসলাম বাবা হত্যার প্রমাণ চান এমপি আনারকন্যা ডরিন আঘাত হানতে শুরু করেছে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে লালমোহনে রাতের আধারে ৩০টি দোকান ভাংচুর ও লুটপাট কাউখালীতে পাঁচ বছরেও শেষ হয়নি সেতু নির্মাণ কাজ। জনগণের ভোগান্তি চরমে ছাত্রদলের হামলায় ছাত্রদল নেতা সবুজ গুরুতর আহত মেয়াদোত্তীর্ণ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ, খুব দ্রুত হবে তৃতীয় সম্মেলন ঘূর্ণিঝড় রেমাল সতর্কতায় কোস্টগার্ডের মাইকিং ‘আগামীকাল সন্ধ্যায় আঘাত হানতে পারে রেমাল’ পলাশে রেললাইনের পাশ থেকে অজ্ঞাত মরদেহ উদ্ধার ভুল চিকিৎসায় প্রাণ গেল স্কুল ছাত্রীর গরু হাটে ব্যাহত ২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৯ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীর শিক্ষা ব্যবস্থা এমপি আনার হত্যা: প্রধানমন্ত্রী জানেন পিতা হারানোর কষ্ট – এমপি কন্যা কোন বিশৃঙ্খলা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সিলেটে এ বছর কুরবানী পশু প্রস্তুত ৪ লাখ ৩০৩৯৭ দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা নিজ অবস্থান থেকে সতর্ক থাকলে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া সম্ভব: ডিসি আরিফুজ্জামান এমপি আনারের লাশ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই: ডিবি