শিক্ষা সফর ও আমাদের করণীয়

রাজধানী টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

ঘটা করেই প্রতিবছর বাংলাদেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনুষ্ঠিত হয় শিক্ষা সফর।নানান আয়োজনের মাধ্যমে বিভিন্ন দূরবর্তী স্থান সমূহে গমনের মাধ্যমে সংগঠিত হয় সফরের কার্যক্রম।

আমরা জানি শিক্ষা তথা নতুন স্থানে গমনের অভিজ্ঞতা অর্জন করার নিমিত্তে যে সফর হয় তাকে শিক্ষা সফর বলে।
শিক্ষা সফর একটি শিক্ষাবর্ষের গুরুত্বপূর্ণ কাজ গুলোর মধ্যে একটি কারণ এই সফরের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের মনস্তাত্ত্বিক চিন্তার উৎকর্ষতা সাধন করতে পারে।শিক্ষা কার্যক্রমের পরেই একটু অবকাশ পেলেই দূর-দূরান্তে ছড়িয়ে থাকা জ্ঞানের সন্ধানে বেড়িয়ে আসার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা নিজস্বতা তৈরি করতে পারে।তাই প্রত্যেক শিক্ষাবর্ষেই শিক্ষক ও পরিচালনা পর্ষদের সমন্বয় করে সফরের আয়োজন করা হয়ে থাকে।

বর্তমানের শিক্ষা ব্যবস্থা সৃজনশীল প্রশ্ন পদ্ধতির মাধ্যমে সূচিত হওয়ার ধরুন শিক্ষার্থী চাইলেও নিজেকে আবদ্ধ করে রাখতে পারে না,তার দরকার পড়ে অবারিত জ্ঞানের প্রসারিত স্থানের। যেখান থেকে শিক্ষার্থীরা চিন্তার খোরাক পাবে নিজেকে উপস্থাপন করার জন্য। তাই বিশদভাবে বলতে গেলে বলা যায় নতুনত্বের সাধ আস্বাদন করতে, নতুনত্বের আমেজ হারিয়ে যেতে, যান্ত্রিক কোলাহল থেকে মুক্তি পেতে মানুষের সত্তার জন্য প্রয়োজন শিক্ষা সফরের। সফর মানুষের ঘুমন্ত সত্তার মধ্যে তরঙ্গের সঞ্চার করে,জানার পরিধি বৃদ্ধি করে।

বিজ্ঞাপন

শিক্ষক মহল চাইতো তার বাচ্চারা যেন এমন একটা স্থানে যেতে পারে যেখানে গেলে তারা জানতে পারবে অবারিত জ্ঞানের সন্ধান,নিজের মনস্তাত্ত্বিক চিন্তার উৎকর্ষতা বাড়াতে পারবে- তাই শিক্ষা সফরের জন্য নির্ধারিত হতো কুমিল্লা ময়নামতি, বিশ্বিবদ্যালয় ক্যাম্পাস,মহাস্থান গড়,জাতিতাত্ত্বিক জাদুঘর, জাতীয় জাদুঘর ইত্যাদি।

বড় বড় বাস নিয়ে স্কুলের শিক্ষার্থীরা তাই ছুটে চলে অজানাকে জানার উদ্দেশ্য করে। তবে, ইদানীংকালে আমরা যেন ভুলতে বসেছি শিক্ষা সফরের আসল সংজ্ঞা। আমরা যেন স্মরণ করতেই পারছিনা আসলে শিক্ষা সফরের উদ্দেশ্য কী? বর্তমানে শিক্ষা সফরের নাম করে অনেকটা আনন্দ ভ্রমণ যেন করে বসেছি। স্থান নির্বাচনের কোনো বালাই নেই। যেখানে গেলে আনন্দ পাওয়া যাবে সেখানেই দে ছুট এমন হয়ে গেছে।

বর্তমানে শিক্ষা সফরের নামে কী করছি- আগেই বলেছি আমরা এখন শিক্ষার নিমিত্তে সফর করার নিয়মটাই ভুলতে বসেছি,কোনো রকম একটা আয়োজনের মাধ্যমে দূর-দূরান্তে ছুটে এসে ক্লান্তচিত্তে বলছি একটা সফল শিক্ষা সফরের সমাপ্তি হলো। অশ্লীল শব্দাবরণে আবেশিত গান গুলো সাউন্ড বক্সে বাজিয়ে চলছে আমাদের শিক্ষা সফরে যাওয়ার প্রস্তুতি। কোনো রকম একটা স্থান নির্বাচন করেই সেখানে গিয়ে হইহট্টগোল করেই দিন কাটিয়ে রাতে নিজের গন্তব্যে পোঁছাতে পারলেই যেন সব কিছু শেষ হয়ে যায়। আমরা যা কিছু করছি- জাতীয় চেতনা বিরোধী গানের সাথে উদ্দাম নৃত্য যত্রতত্র ময়লা আর্বজনা ফেলে পরিবেশ নষ্ট করছি শিক্ষার উদ্দেশ্য ভুলে পাশ্চাত্য ও পশ্চিমা সংস্কৃতির অনুকরণ করছি।

বিজ্ঞাপন

পত্র-পত্রিকা কিংবা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চমকপ্রদ শব্দের গাঁথুনিতে এমন নীতিবিরোধী শিক্ষা সফরের নামে মানুষ কলমী হাতিয়ার তুলে ধরেন।পরিবেশ নষ্টের জন্য অনেকে তাদের মতামত তুলে ধরেন।

শিক্ষা সফরে করণীয়-
শিক্ষা অর্জনের জন্য,মনস্তাত্ত্বিক উৎকর্ষতা অর্জনের জন্যই হউক শিক্ষা সফর।যাতে করে শিক্ষার্থীরা জানতে পারে,বুঝতে পারে অথবা নতুন কিছু শিখতে পারে।

স্থান নির্বাচন-
শিক্ষা সফরের আসল কাজ হলো স্থান নির্বাচন,তাই যারা নীতিনির্ধারক আছে তাদের উচিত শিক্ষার্থীরা কিছু শিখতে পারে এমন স্থান নির্বাচন করা। যেমন স্থান হতে পারে,
ঐতিহাসিক ঘটনার সাথে জড়িত স্থান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস গুলো, জাদুঘর সমূহ, বাংলাদেশের জনগুরুত্বপূর্ণ স্থান সমূহ।

কেমন আচরণ করণীয়-
শালীন ও রুচিসম্মত গান বাজনা করতে পারা যেতে পারে, তবে জাতীয় চেনতার সাথে মিল রাখা দেশাত্মবোধক গান নির্বাচন করা যেতে পারে। যত্রতত্র খাবারের ময়লা ফেলবো না।
যথার্থ নিয়মের মাধ্যমে সফর করা।

পরিশেষে বলতে পারি আমাদের সফর যেন পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের মনস্তাত্ত্বিক চিন্তার পরিবর্তনের ক্ষেত্রে কাজে আসবে এমন স্থান নির্বাচন করার মাধ্যমে সংগঠিত হউক। সবাই নতুন জ্ঞানের মাধ্যমে নিজেকে সমৃদ্ধ করে তুলুক এই আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল rajdhanitimes24.com এ লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয়- মতামত, সাহিত্য, ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার ছবিসহ লেখাটি পাঠিয়ে দিন rajdhanitimes24@gmail.com  এই ঠিকানায়।

শীর্ষ সংবাদ:
রাফায় ইসরায়েলের ভয়াবহ হামলা, ১৭ ফিলিস্তিনি নিহত ড্রেনেজ সংস্কারের নামে ১১’শ কোটি টাকা জলে, সিসিকের মেয়রকে দুষছেন নগরবাসী দক্ষিণ এশিয়ার দ্বিতীয় ব্যয়বহুল শহর ঢাকা সিলেটের নদ-নদীতে হু হু করে বাড়ছে পানি অতীতের চেয়ে বর্তমান ছাত্রলীগ অনেক শক্তিশালী মিয়ানমার সীমান্ত সরকারের কঠোর নজরদারিতে: কাদের কাউখালীতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে কামার শিল্পীরা সিলেট সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী নগরকান্দার তালমা ইউনিয়নে ভিজিএফের চাল বিতরন সিলেটের শুল্ক স্টেশন গুলোতে চুনাপাথর আমদানিতে বেড়েছে রাজস্ব আদায় কাউখালীতে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে গরুর হাট, পশুর আমদানি প্রচুর, ক্রেতা কম বর্তমান সরকার গরীব অসহায় দুস্থদের সরকার- মেয়র শেখ আ: রহমান ঈদের ৩ দিন আগেও যেসব এলাকায় ব্যাংক খোলা ঈদযাত্রায় সড়কে চাপ আছে, যানজট নেই: ওবায়দুল কাদের লালমোহনে দুই বন্ধুর গণধর্ষণের শিকার কিশোরী তানোরে পৃথক ঘটনায় ৩ জনের অপমৃত্যু শ্রীপুরে র‌্যাব পরিচয়ে ১৯ লাখ টাকা ছিনতায়ের ঘটনায় ৫ ডাকাত গ্রেফতার লালমোহনে অটোরিকশার চাকায় পৃষ্ট হয়ে ৫ বছরের শিশু নিহত দেখতে ঘাসের চাঁদরে ঢাকা, আসলে স্কুল মাঠে পানিতে ভাসছে ক্ষুদিপানা