বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো সচল রাখাটাই কষ্টকর হয়ে গেছে: প্রধানমন্ত্রী

ছবি- সংগৃহীত

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে আমদানি পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু রাখা ‘কঠিন হয়ে পড়েছে’ বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেছেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে দেশীয় পণ্যের দাম যেমন বেড়ে যাচ্ছে, পাশাপাশি যে সমস্ত পণ্য আমদানি করতে হচ্ছে, তারও দাম বেড়েছে যাচ্ছে। সব কিছুর দাম এমনভাবে বেড়ে গেছে যে বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো চালিয়ে রাখা… আমাদের নিজস্ব যতটুকু গ্যাস আছে, তা ছাড়া বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু রাখাটাই একটা কষ্টকর ব্যাপার হয়ে গেছে। অত্যন্ত ব্যয়বহুল হয়ে গেছে। সেই বিষয়টাও আপনাদের আমি জানাতে চাই।

বুধবার চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থাপিত ‘শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর’, ‘শেখ জামাল ডরমিটরি’ এবং ‘রোজী জামাল ডরমিটরি’র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

এদিকে সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরের উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) দাম বাড়ছে। ভোজ্য ও জ্বালানি তেল ছাড়াও বিদ্যুৎ, সার, গমসহ বিভিন্ন খাদ্যপণ্যের দাম বাড়ছে। ডিজেলের ওপর আমাদের আমদানি নির্ভরতা রয়েছে। আগামী দিনে ডিজেলের দাম আরও বাড়তে পারে। ভবিষ্যত ফাইন্যান্সিয়াল মেকানিজম কী হবে, এটার উত্তর কেউ দিতে পারছে না।

তিনি বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যে যুদ্ধ পরিস্থিতি একটা বিশ্ব সংকট তৈরি করেছে। যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে আমেরিকা ও ইউরোপের রাশিয়ার ওপর দেওয়া বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞার ফলাফলটা এমন দাঁড়িয়েছে, এখন তেলের দাম বেড়ে যাচ্ছে, ডিজেলের দাম বেড়ে যাচ্ছে। প্রত্যেকটা জিনিসের দাম বেড়ে যাচ্ছে। এলএনজির দাম বেড়ে যাচ্ছে।

আমদানি করা গ্যাস দিয়ে বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু রাখার জন্য সরকারকে ২৫ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হচ্ছে জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে যে ভর্তুকি দিয়ে যাচ্ছে, সেটা কতক্ষণ দিতে পারবে। কারণ, আমাদের মানুষের খাদ্য দিতে হবে, চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে, গৃহহীনদের ঘর দিতে হবে… প্রতিটি ক্ষেত্রে তাদের দিকে আমাদের নজর দিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

এ সংকট সামাল দিতে নিজের পরিকল্পনা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের এখন একটাই উপায়, ইতোমধ্যে আমি নির্দেশ দিয়েছি, প্রত্যেক এলাকাভিত্তিক কখন, কোন এলাকায় কত ঘণ্টা লোড শেডিং হবে, এটার একটা রুটিন তৈরি করে সেভাবেই লোড শেডিং।

যেন মানুষ সেই সময়টায় প্রস্তুত থাকতে পারে। মানুষের কষ্টটা যেন আমরা লাঘব করতে পারি। সেই বিষয়টাই এখন আমাদের নজরে নিতে হবে। আমি আশা করি দেশবাসী অন্তত এই ব্যাপারে আমাদের সাথে সহযোগিতা করবেন।

শীর্ষ সংবাদ:
বড় দুঃসংবাদ পেল ইমরান খানের পিটিআই গাজীপুরে ভবনের ছাদ থেকে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু ৩৮ বছর পর বিশ্ব কোরআন প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের রেকর্ড ১৩ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না, র‍্যাবের হাতে ধরা তানোরে আলুর দাম নিয়ে কৃষকদের দুশ্চিন্তা মহাসড়কে অবৈধ দোকান উচ্ছেদ অভিযান টেকনাফে হোয়াইক্যংয়ে এক দিন মজুরকে পিঠিয়ে হত্যা চাটমোহর উপজেলা আ. লীগ সভাপতির মৃত্যুতে এমপি মকবুলের শোক ঝিনাইদহে অবৈধভাবে মাটি কাটা ও বিক্রির অপরাধে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা জয়পুরহাটে পুলিশ সুপার ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়: ফুল দেওয়াতে সীমাবদ্ধ শিক্ষক সমিতির কার্যক্রম কালাইয়ে ৫৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটিতেও নেই ম্যানেজিং কমিটি শেরপুরে ২০ পরীক্ষার্থী বহিষ্কার, ১৯ শিক্ষককে অব্যাহতি বাকৃবিতে নারী শিক্ষার্থীকে উত্ত্যক্ত করায় তিন বহিরাগতকে মারধর ভাঙ্গুড়ায় স্বামীর সঙ্গে মনোমালিন্য, গৃহবধূর আত্মহত্যা রাজশাহীতে বড়ছে বীজ পেঁয়াজ চাষ রমজানে দ্রব্যমূল্য বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: সালমান এফ রহমান শিক্ষার মাধ্যম হউক মাতৃভাষায় অক্ষুন্ন থাকুক ভাষার মর্যাদা নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে গুলির শব্দ নেই, মাঠে ফিরেছেন কৃষকরা মাদারীপুরে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৫