নতুন বছরে সমৃদ্ধির শীর্ষে উঠুক আমাদের বাংলাদেশ

নতুন বছর, নতুন সরকার, নতুন প্রত্যাশা। আরও একটি নতুন বছর আমাদের দ্বারে এসেছে। স্বপ্ন ও সম্ভাবনা নিয়ে প্রতি বছর পহেলা জানুয়ারি আমাদের মধ্যে আসে। আমরা আলোড়িত উদ্দীপিত হই। আনন্দ-উলস্নাসের পাশাপাশি আমরা অঙ্গীকার করি, নতুন বছরে নতুনভাবে চলতে। নতুনভাবে জীবনযাপন করতে, নতুন স্বপ্ন ও সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে। সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অঙ্গীকারের মধ্যে প্রধান হয়ে ওঠে। ব্যক্তিচরিত্র বদলেরও অঙ্গীকার করি আমরা। গভীর উৎকণ্ঠা, উদ্বেগ , সংকট অর্থনৈতিক বৈষম্য, শ্রেণি বৈষম্য, দ্রব্যমূল্যেরে সীমাহীন উর্ধ্বগতি, ঘুষ-দুর্নীতি, টাকা পাচার আর নানা নিপিড়ন, নির্যাতনের মধ্য দিয়ে পার হলো একটি বছর ২০২৩।

রাশিয়া-ইউক্রেন, ইসরাইল-ফিলিস্তিন যুদ্ধ গোটা বিশ্বের অর্থনীতি এবং দৈনন্দিন জীবনযাপনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। আমাদের যে পরিমাণ সম্পদ, মেধা, শ্রমশক্তি আছে যদি আমরা সেগুলোর উপযুক্ত ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারি তবে ২০২৪ সালের সংকট মোকাবিলা করা খুব কঠিন কাজ হবে না। আসন্ন সংকট মোকাবিলায় প্রথমেই আমাদের সমস্যাগুলো চিহ্নিত করা, অধিক প্রয়োজনীয়তাকে চিহ্নিত করা এবং এ ক্ষেত্রে দেশের বুদ্ধিজীবী, অর্থনীতিবিদ, কৃষিবিদ, শিক্ষাবিদ ও দেশবরণ্যে জাতীয় নেতাদের নিয়ে একটি সংলাপ ও আলোচনা নিয়ে করণীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা যেতে পারে। আলোচনা এবং সংলাপ থেকে চুম্বক বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করতে পারলে আমরা খুব সহজেই দৃঢ়তার সঙ্গে সংকটগুলো মোকাবিলা করতে পারব বলে বিশ্বাস করি। রাষ্ট্রকে সর্বোচ্চ ভূমিকা পালন করতে হবে। আজকের স্কুল-কলেজ পড়–য়া ছাত্রছাত্রীরাই তারুণ্য শক্তি। এই তারুণ্য শক্তিকে কাজে লাগানোর কৌশল ও উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। দেশটা ভালো থাকলে আমরা ভালো থাকব। তাই দেশ গড়ার দায়িত্বটাও আমাদের ঘাড়েই নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

২০২৩ সালে নেতিবাচক খবরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচিত ছিল অর্থ পাচার, ঘুষ, দুর্নীতি, নারী নির্যাতন, নারী কেলেঙ্কারী, দ্রব্যমূল্যের সীমাহীন উর্ধ্বগতি, গার্মেন্টস শ্রমিক হত্যা, ডেঙ্গু প্রতিরোধে ব্যর্থতা ইত্যাদি ২০২৪ সালে যা আমাদের কোনভাবেই কাম্য নয়। দুর্নীতির অর্থ, পাচার করা অর্থ ফিরিয়ে আনতে হবে এবং সেই সঙ্গে দুর্নীতিবাজদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত রতে হবে। ঘুষ, দুর্নীতি এবং লুটপাটের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করতে হবে। সরকারি, আধাসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত সব স্তরের দুর্নীতি, লুটপাটগুলো চিহ্নিত করে তা বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। সামাজিক সংস্কৃতিতে সর্বজনের সম-অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে না পারলে অন্ধকার আরো ঘনীভূত হবে। উদ্ভাবনী শক্তিকে সামনে আনতে হবে। মুক্তচিন্তার চর্চার পরিবেশ বজায় রাখার জন্য রাষ্ট্রকেই উদ্যোগী হতে হবে। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য প্রশাসনিক এবং বিচারিক দুর্বলতাগুলো চিহ্নিত করে তার সমাধানের জন্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ গ্রহণ করে সেই অনুযায়ী পদক্ষেপ নিতে হবে।

নতুনের মধ্যেই নিহিত থাকে অমিত সম্ভাবনা। আর সেই সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দিতে সুযোগ করে দেবে নতুন বছর। স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশকে নিয়ে আমরা গর্বিত ও আশাবাদী। এই দেশ একদিন উন্নত দেশের কাতারে যাবে। এমন স্বপ্ন দেশদরদি জনগণ দেখে, দেখে সরকারও। পরিকল্পনা পরিশ্রম, গঠনমূলক চিন্তা ছাড়া যেমন ব্যক্তি, পরিবার, সমাজের উন্নয়ন সম্ভব নয়, একইভাবে সম্ভব নয় রাষ্ট্রের উন্নয়নও। রাষ্ট্র তা যত ক্ষুদ্রই হোক তার চরিত্র হতে হয় গণমুখী তথা জনকল্যাণমূলক। বাংলাদেশ সে লক্ষ্যেই এগিয়ে যাবে আরো দৃঢ়তার সাথে।

তবে মানবাধিকার, গণতন্ত্র, আইনের শাসন, উন্নত যোগাযোগ ও ট্রাফিকব্যবস্থা, নাগরিক সেবা ও জননিরাপত্তা, চিকিৎসাসেবা, শিক্ষা পরিস্থিতি, ভোটাধিকার বা নির্বাচনী ব্যবস্থা, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, নগরায়ণ, ব্যাংক ব্যবস্থাপনাসহ আর্থিক খাত, দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ, বাণিজ্য ও বাণিজ্য ঘাটতি, নিত্যপণ্যের বাজার, শেয়ারবাজার এমনিভাবে রাষ্ট্রের যে সেক্টরেই দৃষ্টি দেয়া যাক না কেন, সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দুর্বলতা কাটিয়ে ওঠার। এ ব্যাপারে আমরা আশাবাদী আগামী দিনগুলো সমৃদ্ধি বয়ে আনুক জাতীয় জীবনে।

বিজ্ঞাপন

ব্যর্থতার পাশাপাশি সফলতাও কম ছিল না। পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, বঙ্গবন্ধু টানেল, স্যাটেলাইট যোগযোগ ব্যবস্থায় নতুন সম্ভাবনার দার উন্মোচন করেছে। খেলাধুলায় ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের ফুটবল এবং ক্রিকেট সহ অন্যান্য খেলায় অনেক সফল ছিল জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে। ব্যর্থতাকে পিছনে ফেলে সফলতাগুলো প্রেরণার উৎস হিসেবে নিতে হবে। নতুন বছরে দেশের প্রতিটি মানুষের জীবন সুখ-সমৃদ্ধিতে ভরে উঠুক নতুনভাবে। সরকারের কর্মোদ্দীপনায়, দেশ ও জাতির সুনাম আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে আরও বিস্তার লাভ করুক এ প্রত্যাশা আমাদের।

আমরা চাই সরকার জনগণের প্রত্যাশা, আবেগ ও অনুভূতিকে যথাযথ মূল্যায়ন করে দেশটির অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আনতে সর্বাধিক গুরুত্ব দিবে। দেশ ও জাতির মঙ্গলে সবার ভিতরে লুকিয়ে থাকা সুপ্ত দেশপ্রেম জাগ্রত হোক, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হবে, ক্ষুধা- দারিদ্রমুক্ত হবে,নির্যাতন, ধর্ষণ,-অপহরণ- হত্যা-আত্মহত্যা মুক্ত হবে,সাম্প্রদায়িকতা মুক্ত হবে, সম্প্রীতির বন্ধন দৃঢ় হবে, নতুন নতুন কর্মসংস্থান তৈরি হবে, ঘুষ-দুর্নীতি-টাকা পাচারমুক্ত হবে, পাচারকৃত টাকা ফেরত আনবে, দ্রব্যমূলের স্থিতিশীলতা বজায় থাকবে ,গণমানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের অর্থ এবং জীবন আরো নিরাপদ হবে। নতুন বছরের শীর্ষে উঠুক প্রিয় মাতৃভূমি আমাদের বাংলাদেশ। খুলে যাক সম্ভাবনার নতুন দুয়ার- নতুন বছরে এ প্রত্যাশাই করছি।

সুধীর বরণ মাঝি, শিক্ষক, হাইমচর সরকারি মহাবিদ্যালয়, হাইমচর, চাঁদপুর।

শীর্ষ সংবাদ:
মাদারীপুরে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৫ বোনকে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে ফেরার পথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ভাই নিহত শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন পাইকগাছায় সরকারি জমিতে গড়ে ওঠেছে অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা, হারাচ্ছে কোটি টাকার রাজস্ব শরণখোলায় একুশের বই মেলায় রক্তদান কর্মসূচির উদ্বোধন দুই যুগের যাত্রী হয়রানির অবসান করলেন দুই সংসদ সদস্য শিক্ষক হেনস্থার: পবিপ্রবিতে ত্রি-মুখী আন্দোলনে উত্তাল ক্যাম্পাস মায়ের জানাজায় অংশ নিতে দেশে ফিরে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল ২ জনের স্ত্রীর সঙ্গে অভিমান করে স্বামীর আত্মহত্যা রোজার আগে সরকারিভাবেই চিনির দাম বাড়ল কেজিতে ২০ টাকা চেম্বার ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অ্যানেসথেসিয়া প্রদান করা যাবে না: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ঝিনাইদহে রাতে- দিনে অবৈধভাবে মাটি বিক্রির রমরমা ব্যবসা, নিরব ভুমিকায় প্রশাসন হুমকির মুখে বাংলা ভাষা প্রধানমন্ত্রীকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন খতনা করাতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু: দুই চিকিৎসককে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ভাষা আন্দোলনের পথ দিয়েই আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়: বাংলা ও নিজস্ব বর্ণমালা নিয়ে ভাষা শহিদদের স্মরণে আদিবাসী শিক্ষার্থীরা বকশীগঞ্জে দুই মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ১ বাকৃবিতে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত বাস-ট্রলিতে সংঘর্ষে বাড়িতে ঢুকল বাস, নিহত ২, আহত ১০