গুরুদাসপুরের লিচুর বাগানে স্বপ্ন দেখছেন মৌ-খামারীরা

রাজধানী টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার লিচু বাগানের গাছে গাছে মুকুল ফুটেছে, ছড়াচ্ছে গন্ধ। লিচুর উৎপাদন বাড়াতে বাগানে বাগানে চাষিরা বসিয়েছেন মৌ বক্স। সেখান থেকে দলে দলে মৌ-মাছির ঝাঁক বসছে লিচুর মুকুলে। এতে লিচুর বাগানে মৌ-খামারীরা মধু সংগ্রহ করে ও লিচুচাষি দুপক্ষই হচ্ছেন লাভবান।

কৃষি বিভাগের তথ্যমতে, গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর, বিয়াঘাট, চাপিলা ইউনিয়নসহ উপজেলা জুড়ে বানিজ্যিক ভিত্তিতে মোজাফ্ফর,বেদেনা, বোম্বাই, মাদ্রাজি, চায়না-থ্রিজাতের লিচুর আবাদ হয়ে থাকে। উপজেলায় ৪১০ হেক্টর জমিতে ২০০টি বাগান রয়েছে। এসব বাগানে ১৫০ জন খামারি মৌ-বাক্স বসিয়েছেন। মাত্র তিন সপ্তাহে (মার্চের শুরু থেকে তৃতীয় সপ্তাহ) প্রতিটি মৌ-বাক্সে ১৮ থেকে সাড়ে ১৮ কেজি মধু হয়।

গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ও বিয়াঘাট ইউনিয়ন এলাকা ঘুরে দেখাগেছে, গাছে গাছে মুকুল মৌ মৌ গন্ধ ছড়াচ্ছে। সেসব গাছের নিচে ৭০ থেকে ৮০টি করে মৌ বাক্স বসিয়েছে মৌ-খামারীরা। মৌ মাছির দল মুকুল মুকুলে বসেছে। আবার উড়ে এসে বসছে মৌবাক্সে। খামারীরা আবার বাক্স থেকে মধুও সংগ্রহ করছেন।

বিজ্ঞাপন

মৌ খামারি আশরাফুল ইসলাম, রানা আহমেদ, তালেব আলী, সোহেল রানা বলেন, লিচু বাগানে ৬ শতাধিক ব্রুড ও নিউক্লিয়াস নামের ছোট বড় কাঠের বাক্স স্থাপন করেছেন। প্রতিটি বাক্সে একটি রানী মৌমাছি,একটি পুরুষ মৌমাছি ও অসংখ্য এপিচ মেইলিফ্রা জাতের কর্মী মৌমাছি রয়েছে। কর্মী মৌমাছিরা মৌ মৌ গন্ধে ঝাঁকে ঝাঁকে ছুটে যায় লিচুর মুকুলে। পরে মুকুল হতে মধু সংগ্রহ করে মৌমাছির দল নিজ নিজ কলোনিতে মৌচাকে এনে জমা করে। মৌ-খামারীরা আরো জানান, সরিষার মধুর দাম বেশি থাকে। তবে লিচুর মধু বাড়তি উপার্জন হয় তাঁদের। স্থানীয় চাষি ছাড়াও সাতক্ষীরা, সিরাজগঞ্জ, ময়মনসিংহ ও পাবনাসহ দেশের অনেক জেলা থেকেও মৌ চাষিরা আসনে মধু সংগ্রহে। ছোট বড় নানা আকৃতির মৌমাছির বাক্স বসিয়ে বৈজ্ঞানিক উপায়ে মৌ চাষ করে থাকেন তাঁরা।

নাজিরপুর ইউনিয়নের লিচু চাষি মো. আব্দুস সালাম বক্স ও সাকাওয়াত হোসেন বলেন, উপজেলা জুড়েই বাণিজ্যিক ভাবে লিচুর আবাদ হচ্ছে। গত ১২ বছর ধরে কৃষি বিভাগের পরামর্শে লিচু চাষে সফলতা পাচ্ছে চাষিরা। তবে কীটনাশকের চেয়ে মৌ-মাছির পরাগায়ন পদ্ধতি লিচুর উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়।

গুরুদাসপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মোঃ হারুনর রশিদ বলেন, লিচুর মুকুলে মৌ-মাছি বসলে পরাগায়ন ভালো হয়। ফলে ওই গাছে বা বাগানে লিচুর ফলন বৃদ্ধি হয়। একই সাথে লিচুর আকার-আকৃতিও বাড়ে। এতে লিচু চাষিরা আর্থিক ভাবে লাভবান হন বেশি। পাশপাশি মৌ-খমারীরাও বাণিজ্যিক ভাবে মধু সংগ্রহ করে আর্থিক ভাবে লাভবান হয়ে থাকেন। ১৫ বছর ধরে এপন্থা অনুসরণ করে লাভবান হচ্ছেন লিচুর বাগান মালিক ও মৌ-খামারীরা।

বিজ্ঞাপন

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল rajdhanitimes24.com এ লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয়- মতামত, সাহিত্য, ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার ছবিসহ লেখাটি পাঠিয়ে দিন rajdhanitimes24@gmail.com  এই ঠিকানায়।

শীর্ষ সংবাদ:
সঞ্জীবা গার্ডেনের সেপটিক ট্যাংকে মিলল ৪ দলা মাংস এমপি আনারের মরদেহের মাংস উদ্ধারের দাবি অপরাধী হলে আজিজ-বেনজীরের বিচার হবে: ওবায়দুল কাদের বিমানের নতুন এমডি জাহিদুল ইসলাম বাবা হত্যার প্রমাণ চান এমপি আনারকন্যা ডরিন আঘাত হানতে শুরু করেছে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে লালমোহনে রাতের আধারে ৩০টি দোকান ভাংচুর ও লুটপাট কাউখালীতে পাঁচ বছরেও শেষ হয়নি সেতু নির্মাণ কাজ। জনগণের ভোগান্তি চরমে ছাত্রদলের হামলায় ছাত্রদল নেতা সবুজ গুরুতর আহত মেয়াদোত্তীর্ণ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ, খুব দ্রুত হবে তৃতীয় সম্মেলন ঘূর্ণিঝড় রেমাল সতর্কতায় কোস্টগার্ডের মাইকিং ‘আগামীকাল সন্ধ্যায় আঘাত হানতে পারে রেমাল’ পলাশে রেললাইনের পাশ থেকে অজ্ঞাত মরদেহ উদ্ধার ভুল চিকিৎসায় প্রাণ গেল স্কুল ছাত্রীর গরু হাটে ব্যাহত ২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৯ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীর শিক্ষা ব্যবস্থা এমপি আনার হত্যা: প্রধানমন্ত্রী জানেন পিতা হারানোর কষ্ট – এমপি কন্যা কোন বিশৃঙ্খলা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সিলেটে এ বছর কুরবানী পশু প্রস্তুত ৪ লাখ ৩০৩৯৭ দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা নিজ অবস্থান থেকে সতর্ক থাকলে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া সম্ভব: ডিসি আরিফুজ্জামান এমপি আনারের লাশ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই: ডিবি