‘খোঁজ রাখেন না সন্তানরা’ দিনমজুরি করে জীবন কাটে শতোর্ধ বয়সী জেবল হকের

রাজধানী টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

৬৫ বছর বয়স পেরুলেই যে কোন ব্যক্তি বার্ধক্যে উপনীত হন। এরপর ধীরে ধীরে শারীরিক সক্ষমতা দুর্বল হতে থাকে। বয়সের ভারে ন্যুজ হয়ে ক্রমান্বয়ে বিছানাকে সঙ্গী করতে শুরু করেন। অন্যের উপর নির্ভর করে চলতে থাকে জীবনের বাকি সময়টুকু। এর ব্যতিক্রম দেখালেন দ্বীপ জেলা ভোলার লালমোহন উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বশির উদ্দীন হাজী বাড়ীর দিনমজুর বৃদ্ধ মো. জেবল হক মিয়া (১১০)। তার বয়স শতবর্ষ পেরিয়েছে প্রায় এক যুগ আগে । তিনি দিনমজুরি করে চালাচ্ছেন তার সংসার। জীবন যাপন করছেন দুঃখ কষ্টে।

বৃদ্ধ মো. জেবল হক মিয়ার সাথে কথা বলে জানা যায়, জন্ম কত সালে তা ঠিক মনে নেই তার তবে এটুকু বলতে পারে একশ দশ হয়েছে তার বয়স। শ্রবন শক্তি কমে গেছে তার পরও সব কিছু মনে আছে তার চোখে দেখলেই চিনতে পারেন তিনি স্বজনদের । তিনি বলেন তার পিতা মৃত আনা মিয়া, বশির উদ্দিন হাজী বাড়িতেই জম্ম গ্রহণ করেন। লালমোহন সদর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দা তিনি । ১৫ সন্তানের জনক তিনি। সাত ছেলের তিন জনই মারা গেছেন । আট মেয়ের মধ্যে সাত জন বেঁচে আছেন। তার সন্তান সন্ততি থাকলেও কেউই খোঁজ খবর রাখেন না তার। দিনমজুরি করে অনেক কষ্টে মোটামুটি পেট চালান তিনি । রমজানে নিয়মিত তারাবিহ সহ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতের সাথে দাঁড়িয়ে আদায় করেন তিনি । বৃদ্ধ জেবল হক মিয়া তার ফেলে আসা মধুর দিন গুলির অনেক স্মৃতিচারন করলেন অকপটে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিনি নিজের জমিতে ফসল ফলানো, নিড়ানি দেয়াসহ সব কাজ তিনি নিজেই করেন।

তিনি ৪০ শতাংশ (৫ গন্ডা) জমিতে ধান, মরিচ সহ বিভিন্ন প্রকার চাষাবাদ করেন। কোন সন্তানরাই তার সহযোগিতা করেননা বলে জানান তিনি। স্ত্রী মারা গেছেন ৮-১০ বছর আগে। বৃদ্ধ জেবল হক মিয়া তার দ্বিতীয় মেয়ে আচিয়া (৭০) (স্বামী পরিত্যক্ত) কে তার বাড়ীতে নিজের সাথেই রাখেন। তার খাওয়া দাওয়া যত্ন এমনকি দেখাশোনা মেয়ে আচিয়াই করেন। তার নাতি নাতনি সহ অসংখ্য নিকটাত্মীয় রয়েছেন কিন্তু কেউই তার কাজে আসছে না। তিনি বলেন সরকারি ভাবে একটা বয়স্ক ভাঁতার কার্ড আছে তার। বৃদ্ধ বলেন ভাঁতার ১৫ শত টাকা করে কয়েক মাস পর পর পাই তা দিয়ে কি হয়? ঔষধ কিনতে হয় মাসে অনেক টাকার । তিনি স্থানীয় জন প্রতিনিধি এবং বিত্তবানদের নিকট ও সরকারি- বেসরকারি সহযোগিতা কামনা করেছেন।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যপারে লালমোহন উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মো. মাসুদ বলেন, তিনি বয়স্ক ভাঁতা পেয়ে থাকলে আমাদের অফিস থেকে তাকে আর কোন সুবিধা দেওয়ার সুযোগ নেই। তবে সরকারি হাসপাতালে বিনা মূল্যে তাদের জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে।

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল rajdhanitimes24.com এ লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয়- মতামত, সাহিত্য, ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার ছবিসহ লেখাটি পাঠিয়ে দিন rajdhanitimes24@gmail.com  এই ঠিকানায়।

শীর্ষ সংবাদ:
রাতভর ইরানের হামলা ঠেকাতে ইসরায়েলের খরচ বিলিয়ন রানীশংকৈলে কুলিক নদীতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু নানা আয়োজনে পাইকগাছায় পহেলা বৈশাখ বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ পালন গোয়ালন্দ উপজেলা প্রশাসনের বর্ণাঢ্য আয়োজনে মঙ্গল শোভাযাত্রা সিঙ্গাইর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন কাউখালীতে নববর্ষ উপলক্ষে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত ৫ মিলিয়ন ডলারে মুক্তি পেয়েছে এমভি আব্দুল্লাহ ডলারভর্তি ব্যাগ পাওয়ার ৮ ঘণ্টা পর ২৩ নাবিকদের মুক্তি দেয় দস্যুরা কচুয়ায় নানা আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন মাটিরাঙ্গায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন ত্রিমুখী হামলা ঠেকাতে ব্যস্ত ইসরায়েল, সঙ্গ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র বর্ষবরণে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি যশোরের ঐতিহ্যবাহী শুড়িরডাঙ্গায় চড়কপূজা অনুষ্ঠিত পাইকগাছার সোলাদানায় লিজ ঘের দখলে ব্যর্থ হয়ে প্রান নাশের হুমকি: আদালতে মামলা শ্রীপুরে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা ঘোষণা দিলেন মৌসুমি সরকার ঝালকা‌ঠির সুগন্ধা নদীর স্রোতে ভেসে গেলো স্কুলছাত্র সরকার হজযাত্রীদের খরচ কমানোর কারণে হজ যাত্রী সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে: ধর্মমন্ত্রী মুন্সিগঞ্জে আ.লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ হয়ে তরুণের মৃত্যু পহেলা বৈশাখে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা নেই লালমোহনে প্রতিপক্ষের হামলায় গর্ভবতী নারীসহ আহত ৩