আমার দেখা শিক্ষক

রাজধানী টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

শিক্ষক কখনও জাতি গড়ার কারিগর হতে পারে না! কারণ শিক্ষক এমন কোন মহান নয় যে আমূল পরিবর্তন করে পথ প্রদর্শক হতে পারেন।যদি শিক্ষকের সংজ্ঞা দেয় তাহলে বুঝতে পারবেন!শিক্ষক হল নির্দিষ্ট বিষয়ের ওপর অর্জনকৃত জ্ঞান দান করা যা অন্য ব্যক্তির জীবনে প্রতিফলন ঘটাতে পারে আবার নাও পারে।শিক্ষক মানেই শিক্ষা দান করা।

সে হিসেবে একজন ড্রাইভারও তার হেল্পারের নিকট শিক্ষক।যদি শিক্ষক মানে আদর্শ হতো, তাহলে কখনও অহংকারে নিমজ্জিত হতো না বিদ্যাপীঠ। হতো না পরনিন্দার চর্চা, ক্ষমতার অপব্যবহার, পারতো না স্বার্থপর হতে।আমরা শিক্ষক বলতে যা বুঝি তা কখনও সঠিক নয়।জাতি গড়ার কারিগর যদি শিক্ষক হতো, তাহলে এই পথভ্রষ্ট জাতির দায়ভার কার?এই ঘুষখোর-দুর্নীতিবাজদের কে শিক্ষিত করলো?শিক্ষক যদি আদর্শই হতো তাহলে এই শিক্ষিত অন্যায়কারীদের আদর্শ কে? নাকি শিক্ষকও অন্যায়কারী বলে তারাও অন্যায়কারী।সন্তানের প্রতিচ্ছবিই যদি পিতা-মাতা হয়, তাহলে শিক্ষিতদের প্রতিচ্ছবি কারা? নিশ্চয়ই শিক্ষক!

আমি শিক্ষকদের বিরোধী নয়,আমি শিক্ষকের মর্যাদায় বিরোধী।আমার মনে হয় শিক্ষকের মর্যাদা একটু বেশিই দেখানো হয়েছে।একজন শিক্ষক বরাবরই গুরুর চেয়ে ছোট।গুরু আমূল পরিবর্তন করে তার শিষ্য দ্বারা। যে পথ বাতলিয়েছে সেই পথে আগে সে হাঁটে।তার দ্বারা অযথা উপদেশ আসে না।যার নিজের মধ্যেই যা নেই তা যদি অন্যকে উপদেশ দেয়। আর যাই হোক সে গুরু নয় সে শিক্ষক।সে কপট ও ভন্ড।গুরু পরীক্ষিত,বাস্তবিক জ্ঞানের ভান্ডার।যার দ্বারা সকল কিছুই পরিবর্তন সম্ভব।শিক্ষক পুঁথিগত বিদ্যার ভান্ডার যা পরিবর্তনে আসতেও পারে আবার নাও আসতে পারে।মরীচিকার দূরত্ব যেমন নির্দিষ্ট করা যায় না তেমনি শিক্ষকের উপরও ভরসা করা যায় না।

বিজ্ঞাপন

আমার কাছে শিক্ষকের চেয়ে গুরুর সম্মান অগ্রাধিকার।কারণ গুরুরা অযথা বলি বেড়ায় না,তারা জেনে-বুঝে তৈরি করে।সমাজ পরিবর্তনে আমূল পরিবর্তন ঘটাতে সাহায্য করে।অপরদিকে শিক্ষক যদি আদর্শই হতো তাহলে কেন এখনও ন্যায়ের পতাকা বলুন্ঠিত?কেন এই অসমাচার? আমি শিক্ষক না গুরু চাই, যে নিজের গুণ নিঃস্বার্থে বিলিয়ে দিবে। আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে সমাজ হবে একাকার। তাই আমি গুরুকেই বলি জাতি গড়ার কারিগর।কারণ গুরু কোন পেশায় নয় শিক্ষকতার মতো।কপট আর ভন্ডামীর জ্ঞান আর যাইহোক গুরু দেয় না।

শিক্ষকের চেয়ে একজন কৃষক উত্তম! বির্তক করার আগে কৃষকের মেধা,শ্রম ও সৃজন দেখেন, অবাক হবেন!কৃষক তার ফলনের অবস্থা দেখেই বুঝে যায় কখন কি লাগবে বা কি দরকার।ফলে তার যেমন উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি পায় পাশাপাশি অভিজ্ঞতার ভান্ডারও সমৃদ্ধ হয়।

অপরদিকে শিক্ষকের কোথায় উৎপাদনশীলতা বা অভিজ্ঞতার ভান্ডার! শিক্ষার্থীদের দেখে কি বুঝতে পারে কেমন বা কিভাবে পরিচর্যার প্রয়োজন বা নিজে পারবে কি না! কিন্তু গুরু ঠিকই পরিচর্যা ও বাস্তব অভিজ্ঞতার নির্যাস প্রদান করে। যেমন মা তার সন্তানদের শিক্ষা দেয়, নিজ অভিজ্ঞতার বলে গুরু।মা-গুরু দুজনেই শিক্ষা-অনুপ্রেরণা, সৃজন জোগায়।শিশুর মন হয় বিকশিত,সেই বিকশিত মনে শিক্ষকরা আনে হতাশা!ভাবনায় মগ্ন তাদের স্বার্থ, ডুবে থাকে আরাম-আয়েশ ও বিলাসিতায়!

বিজ্ঞাপন

ন্যায়হীন জ্ঞানীও শিক্ষক কিন্তু গুরু কখনও ন্যায়হীন হতে পারে না।তার কাছে সকল শিষ্যই সমান, যে সমতা আনে শিষ্যদের আর শিষ্যরা আনে সমাজের।তবেই না সমাজ হয় উন্নত আর স্পষ্ট। তাই শিক্ষকের উচিত গুরু হওয়া, কোন পেশার মধ্যে আবদ্ধ না থাকা।

উজ্জ্বল হোসাইন,ইংরেজি বিভাগ,
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল rajdhanitimes24.com এ লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয়- মতামত, সাহিত্য, ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার ছবিসহ লেখাটি পাঠিয়ে দিন rajdhanitimes24@gmail.com  এই ঠিকানায়।

শীর্ষ সংবাদ:
গাজীপুরে নিখোঁজের এক দিন পর কিশোরের লাশ উদ্ধার নওগাঁয় চাঞ্চল্যকর মাত্তাবর হত্যাকাণ্ডে দুই যুবক আটক কাল থেকে টানা ২০ দিনের ছুটিতে যাচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মৌসুমি ফলের দাম আকাশ ছোঁয়া, মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তদের নাগালের বাইরে বরিশালে মেয়েকে গলা কেটে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা কুয়েতে শ্রমিকদের আবাসিক ভবনে আগুন, নিহত বেড়ে ৪১ পাইকগাছাকে গৃহহীন-ভূমিহীন মুক্ত ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী চুরি শুধু অর্থ দিয়েই হয় না বুদ্ধিভিত্তিক চুরিও হয়ে থাকে: জবি উপাচার্য এমপি আনোয়ারুল হত্যাকাণ্ড: ঝিনাইদহের কয়েকজন রাজনৈতিক নেতা নজরদারিতে নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন শেখ হাসিনা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী দুদকে দুনীর্তির অভিযোগ করায় শিক্ষক ক্লাবকে অস্তিত্বহীন বলছেন অধ্যক্ষ সিলেটে কমতে শুরু করেছে বন্যায় পানি, বর্ষায় বাড়ছে রোগবালাই ডাকাতির প্রস্তুতিকালে রাজশাহীতে জনি গ্যাংয়ের ৯ সদস্য গ্রেপ্তার কাউখালীতে ব্রিজের জন্য হাহাকার, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ৯ গ্রামের মানুষ নেত্রকোনায় ‘জঙ্গি আস্তানা’য় সোয়াট, আরও একটি বাড়ি ঘেরাও ধামইরহাটে শিশু নিখোঁজ, বদলগাছীতে মিলল মরদেহ কালাইয়ে দু’সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিপ্রতি আলুর দাম বেড়েছে ১৫ টাকা আনার হত্যার পরিকল্পনাকারী শাহীনের ফুপাতো ভাই আ. লীগ নেতাকে আটক করেছে ডিবি ঈদে ১৮ ফেরি ও ২০ লঞ্চ চলবে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে চলছে বাজেট উপস্থাপন