অনলাইনে সৎ মানুষের বিপদে পড়ার সম্ভাবনা বেশি: গবেষণা

রাজধানী টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

সততাই সর্বোত্তম পন্থা—এই শিক্ষা নিয়েই বড় হয় শিশুরা। তবে কোনো মানুষের মূল্যবান এই চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যটি তাঁকে অনলাইনে বিপদে ফেলতে পারে বলেও দাবি করেছেন গবেষকেরা।

কেন মানুষেরা অনলাইনে প্রতারিত হয়—সম্প্রতি এই বিষয়বস্তুর ওপর একটি গবেষণা করেছিলেন ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন এবং ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির গবেষকেরা। পরে তাঁদের এ সংক্রান্ত গবেষণাপত্রটি কমিউনিকেশনস সাইকোলজি সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে।

এই গবেষণায় মানুষেরা কীভাবে অনলাইনে মিথ্যা শনাক্ত করে তার অন্তর্নিহিত আকর্ষণীয় নিদর্শনগুলো তুলে ধরা হয়েছে। গবেষণাপত্রের সহ-লেখক তালি শারোট এবং সারাহ ঝেং মেডিকেল এক্সপ্রেসকে জানান, সারা বিশ্বে প্রতি বছর অনলাইনে প্রতারিত হয়ে বিলিয়ন বিলিয়ন অর্থ হারাচ্ছে অসংখ্য মানুষ। বিশেষ করে, করোনা মহামারির পর থেকে এই প্রবণতা বেড়েছে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার আবির্ভাবও পরিস্থিতিকে আরও খারাপের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

এ ক্ষেত্রে অনলাইনে প্রতারণা শনাক্ত করার আগে গবেষকেরা বুঝতে চেয়েছিলেন—মানুষেরা কেন অনলাইনের ফাঁদে পড়ে যায়।

গবেষকেরা জানান, অফলাইন বা মুখোমুখি অবস্থান থেকে একজন মানুষ কিছু সূক্ষ্ম ইঙ্গিতের ওপর ভর করে প্রতারণা শনাক্ত করার চেষ্টা করতে পারে। উদাহরণস্বরূপ—কোনো ব্যক্তির অভিব্যক্তি, আচরণ বা অঙ্গভঙ্গি দেখে তাঁর প্রতারণা সম্পর্কে আঁচ করতে পারে অন্য মানুষ। কিন্তু অনলাইনে তো এমনটি সম্ভব নয়। তাই অনলাইনে প্রতারিত হওয়ার বিষয়টি বুঝতে ৩১০ জন মানুষের ওপর একটি পরীক্ষা চালানো হয়। পরীক্ষার অংশ হিসেবে তাঁদের সবাইকে অনলাইনে জোড়ায় জোড়ায় একটি কার্ড খেলায় অংশ নিতে বলা হয়। এ ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কিছু কার্ডের মাধ্যমে অর্থ আয় হবে, আর অন্যগুলো আর্থিক ক্ষতির কারণ হতে পারে।

খেলাটিতে মিথ্যা বলে অন্যকে ঠকিয়ে চাতুর্যের মাধ্যমে চাইলে বেশি অর্থ আয় করার সুযোগ ছিল। যদিও মিথ্যা বলার জন্য কাউকেই নির্দেশ দেওয়া হয়নি।

বিজ্ঞাপন

খেলার শেষে অংশগ্রহণকারীরা তাঁর প্রতিপক্ষকে কতটা সৎ ভেবেছিলেন সেই সম্পর্কে রেটিং করতে বলা হয়েছিল।

গবেষকেরা বলেন—আমরা দেখতে চেয়েছিলাম, প্রতিপক্ষের সততা যাচাইয়ের একজন কী কী সূত্র ব্যবহার করছেন। যেমন, কেউ যখন প্রতিপক্ষকে মিথ্যা বলেন, তখন তিনি প্রতিপক্ষকেও একইরকম মিথ্যাবাদী ভাবছেন কি-না। বিশেষ করে কেউ যখন কোনো ভালো কার্ড পাওয়ার দাবি করছে তখন প্রতিপক্ষ বিষয়টিকে কতটুকু সন্দেহের চোখে দেখছে। আবার কেউ হেরে গেলে তিনি প্রতিপক্ষকে মিথ্যাবাদী ভাবছেন কি-না।

এ ক্ষেত্রে গবেষকেরা দুটি দিক পর্যবেক্ষণ করেছেন। প্রথমত তাঁরা দেখেছেন, খেলাটিকে যারা প্রতিপক্ষকে মিথ্যা বলেছেন, তারা প্রতিপক্ষের প্রতিও অনেক সন্দিহান ছিলেন। দ্বিতীয়ত, তারা সন্দিহান ছিলেন যখন প্রতিপক্ষ পরিসংখ্যানগতভাবে একটি ভালো কার্ড পাওয়ার দাবি করেছিল।

গবেষকেরা খেলোয়াড়দের আচরণকে একটি কৃত্রিম মিথ্যা শনাক্তকারী যন্ত্রের সঙ্গে তুলনা করেছিলেন। এই পদ্ধতিতে তাঁরা দেখেছেন—দুর্বল মিথ্যা শনাক্তকারী ব্যক্তি নিজের সততার (বা অসততা) ওপর অতিরিক্ত নির্ভর করেছিলেন।

শারোট এবং ঝেং বলেন, ‘ফলাফলগুলো ইঙ্গিত করে, সৎ মানুষেরা ফাঁদে পড়ার বিষয়ে সংবেদনশীল হতে পারে। কারণ মিথ্যা বা ফাঁদ শনাক্ত করার ক্ষেত্রে তারা কম সন্দিহান থাকেন।’

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল rajdhanitimes24.com এ লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয়- মতামত, সাহিত্য, ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার ছবিসহ লেখাটি পাঠিয়ে দিন rajdhanitimes24@gmail.com  এই ঠিকানায়।

শীর্ষ সংবাদ:
ভূরুঙ্গামারীতে মোবাইল কিনে না দেওয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা কাউখালীতে রাত পোহালেই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন রাত পোহালেই শেরপুরের দুই উপজেলায় ভোট মতলব উত্তরে সাজাপ্রাপ্ত আসামি ১৭ বছর পর আটক ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুর খবরে বেড়েছে তেলের দাম কচুয়ায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সাতক্ষীরার আম দেশের গন্ডি পেরিয়ে এখন ইউরোপে লালমোহনে দুদকের উদ্যোগে ২য় পর্বের বিতর্ক প্রতিযোগিতা সম্পন্ন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মরদেহ উদ্ধার ভোলায় ষষ্ঠ ধাপে ভোটগ্রহণ আগামীকাল ডিবি কার্যালয়ে হেফাজত নেতা মামুনুল হক যশোরে ভোট বর্জনের আহ্বানে বিএনপির লিফলেট বিতরণ নরসিংদীর মাধবদীর মাদক সম্রাজ্ঞী মায়া বেগম ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ গ্রেপ্তার, জনমনে স্বস্তি শ্রীনগর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যাগে কাপ-পিরিচ প্রতিকের বিশাল মিছিল অবশেষে শুরু হলো রাজশাহীর কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার নির্মাণ কাজ শেরপুরে ৫ আন্তঃজেলা গরু চোর গ্রেপ্তার শ্রীপুরে বজ্রপাতে নারীর মৃত্যু চলন্ত বাসে আগুন, ৮ জনের মৃত্যু ৮০ কিমি বেগে ঝড়ের পূর্বাভাস যেসব এলাকায় ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না আজ