আত্মসম্মানবোধের সংকট দেশ ও জাতির উন্নয়নের অন্তরায়

রাজধানী টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

আমার জন্মের ৫১ বছর চলছে। আমার মুক্ত জীবনের বয়স এক একান্ন বছর। ধীরে ধীরে বেড়ে উঠেছি নানান ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে। আমার অবকাঠামোগত উন্নয়ন চোখে পড়ার মতো হলোও আত্মিক উন্নতি ঠিক তেমনি তলানীর দিকে এসে ঠেকার উপায়। আত্মসম্মানবোধ আজ গভীর সংকটের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। যার আছে সেও হাত পাতে আর যার নাই সেও হাত পাতে। আত্মসম্মানবোধের সংকটের মধ্য দিয়ে একটি জাতি কখনো উন্নতির শিখরে অবস্থান করতে পারে না। মানুষ শুধু হাত পাততে শিখছে। দেওয়ার মানসিকতা, মানবিকতা, মূল্যবোধ মুছে ফেলার অবিরত চেষ্টা করে যাচ্ছে। অফিস আদালতে চলছে আত্মসম্মানবোধ সংকটের মহামারি। ঘুষ, দুর্নীতি, কালোবাজারী, মাদক কারবার, টাকা পাচার, হত্যা, খুন, ধর্ষণ, বলাৎকার, নারী ও শিশু পাচার, কালো টাকার মালিক বনে যাওয়া, ধর্মান্ধতা, আত্মসাৎ ইত্যাদি সবই হচ্ছে আত্মসম্মানবোধ সংকটের কারণে। আত্মসম্মানবোধ সংকটের প্রধান শত্রু হলো লোভ। লোভ আমাদেরকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে এসেছে। এ থেকে বেরিয়ে আসা জরুরুী। আর তা না হলে আমাদের আগামী প্রজন্মের জন্য দন্ধ-সংঘাত,হিংসা-বিদ্বেষ, খুন,রাহাজানি ছাড়া কিছুই রেখে যেতে পারবো না।

অধিকারী। আত্মসম্মানবোধ সংকটের মানুষ নিজের সঙ্গে শান্তিতে যেমন থাকতে না পারে তবে অন্যের সঙ্গেও শান্তিতে থাকতে পারে না। আত্মসম্মান বোধের সংকট গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের চর্চা এবং গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টিতে বিঘ্ন ঘটায়। আত্মসম্মানবোধের সংকট এক সময় নিজের অত্মিত্বের সংকট তৈরি করে। আত্মসম্মানবোধহীণ মানুষ সব সময়ই মৃত। তারা কখনো জীবনের স্বাদ পায় না। তারা অবৈধভাবে আরো চাই , আরো চাই করতে থাকে । এই চাওয়া –পাওয়া বৈধ-অবৈধ ভেদাভেদ বিচার করে না। এমনিভাবে তারা নিজেদরকে পশুর স্তরে নামিয়ে আনে। ভুলে যায় মনুষ্যত্ব,মূল্যবোধ, মানবিকতা।

উন্নত আত্মসম্মান বোধ সুখী, পরিতপ্ত এবং অভীষ্ট লাভে উদ্যোগী জীবন যাপন সম্ভব করে। নিজের যথার্থ গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতন না হলে আত্মসম্মানবোধ বাড়ে না। ইতিহাসের মহান বিশ্বনেতা ও আচার্যরাও এই কথাই বলেছেন যে অন্তরের প্রেরণা ব্যতীত সফল হওয়া যায় না। উন্নত আত্মমর্যাদাবোধ সম্পন্ন মানুষের বিশ্বাস যোগ্যতা ও দায়িত্ব নেয়ার ইচ্ছাও উন্নত হয়। তারা আশাবাদী, সবার সঙ্গেই সুসম্পর্ক রাখেন এবং পরিপূর্ণ জীবন যাপন করেন। তাদের থাকে কর্মপ্রেরণা ও উচ্চাশা এবং তারা সংবেদনশীলও হয় অনেক বেশি। আত্মসম্মান বোধ কাজকর্মের মানকে উন্নত করে এবং ঝুঁকি নেয়ার ক্ষমতাও বাড়িয়ে দেয়।মানুষের ধ্যানধারণা ও তার উৎপাদনশীলতার মধ্যে একটি প্রত্যক্ষ যোগ আছে। যারা নিজের প্রতি ও অপরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, মাতাপিতা, আইন-কানুন ও ধন-সম্পদকে সমীহ করেন এবং নিজের দেশকে ভালোবাসেন তারাই উন্নত আত্মসম্মান বোধের পারিবারিক শিক্ষা, সমাজিক শিক্ষা, প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা আত্মস্মানবোধ সংকট মোকাবেলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

বিজ্ঞাপন

শিশু যদি কেবল নিন্দা শুনতে শুনতে বড় হয়, তবে নে নিন্দা- মন্দ করতেই শিখবে। আবার যদি প্রশংসা শুনে বড় হয়, তবে প্রকৃত মুল্য উপলব্দি করতে শিখবে। যদি সে বেড়ে হয়ে উঠে নানা প্রতিকূলতার মধ্যে তবে সে লড়াই করার শক্তি যাবে বেড়ে। আর যদি তার পরিবার হয় সহনশীল, সেও হয়ে উঠবে ধৈয্যশীল।। শৈশব থেকে যদি কেবল উপহাসই পায় তবে সে হবে লাজুক। আর যদি ভালো কাজে পেয়ে থাকে ক্রমাগত উৎসাহ তবে তার আত্মবিশ্বাস যাবে বেড়ে এবং খারাপ কাজের জন্য তিরষ্কার পায় বা সমালোচনার স্বীকার হয় তবে সেও আত্মসংযমী হয়ে উঠবে। যদি বড় হয়ে উঠে লজ্জাজনক আবহাওয়ায় তাহলে সে নিজেকে ভাববে দোষী, আর যদি পায় সকলের সমর্থন, তবে সে নিজের উপরেই আস্থা রাখতে পাররবে।। শৈশবে যদি সুবচার পায়, তবে সে ন্যায় বিচার করতে শিখবে। নিরাপত্তার মধ্যে বাস করলে, সে শিখবে বিশ্বাস করতে। শিশু যদি পায় বন্ধুত্ব ও স্বীকৃতি, তবে সে পৃথিবীতে ভালবাসার সন্ধান করবে। শিশুদেরকে শিখাতে হবে নিজের জন্য বা নিজ পরিবারের জন্য হাত পাতার মধ্যে কোন গৌরব নেই, কোন সম্মান নেই, আছে শুধু হীণমন্যতা, লজ্জা আর লজ্জা। আমরা কেবল ভাবাবেগ সম্বল করে বাঁচতে পারি না। বয়স যাই হোক না কেন, আমাদের শৃঙ্খলা বোধ আনতেই হয়।

আত্মসম্মান বোধের মধ্যে দিয়ে দুর্ভাগ্যকে সৌভাগ্যে পরিণত করা যায়। নিজেদের মধ্যে আত্মসম্মানবোধ জাগিয়ে তোলার শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। সন্তানদের মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে গড়ে তুলতে হবে। মানবাধিকার সম্পর্কে তারা যেন সজাগ থাকে সে বিষয়ে শিক্ষা দিতে হবে। ’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার ভাষায় বলা যায়, ‘মানুষই পৃথিবীর একমাত্র প্রাণী, যাকে কি না জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত শুনতে হয়—মানুষের মতো মানুষ হতে হবে। কিন্তু অন্য প্রাণীকে সেই প্রাণী হওয়ার কথা বলা হয় না। ’ আত্মসম্মানই মানুষের বিচিত্র পরিচয় বহন করে। মানুষকে উৎসাহিত করে,অনুপ্রাণীত করে মানবিকতায়, মৌলবোধে।

আত্মসম্মনবোধ মানুষের শ্রেষ্ঠ সম্পদ। আমাদের সমাজে প্রাচীন কিছু নৈতিক মূল্যবোধ রয়েছে, যা বাঙালিরা তাদের সভ্যতা ও সংস্কৃতির ধারক-বাহক হিসেবে গ্রহণ করেছে, যেমন সত্যবাদিতা, অহিংসা, শান্তি, ক্ষমা, অধ্যবসায়, সরলতা, জ্ঞানের তৃষ্ণা, সহনশীলতা, সহযোগিতা এবং শ্রদ্ধা। আমাদের ঐতিহ্যবাহী সমাজ শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও ধর্মীয় অনুশীলনের মাধ্যমে নৈতিক মূল্যবোধ শেখায়। আর এগুলো চর্চার মধ্য দিয়ে আমাদের আত্মসম্মান বৃদ্ধি পাবে এবং সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধি পাওয়ার পাশপাশি ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে সুখ-সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পাবে।

বিজ্ঞাপন

যে জাতি বুকের রক্ত দিয়ে দিয়ে আমার স্বাধীনতা এনে দিতে পারে, আমাকে শত্রুমুক্ত করতে পারে সেই জাতির কখনো আত্মসম্মানবোধের সংকট থাকতে পারে না। তারা কখেনোই ঘুষ, দুর্নীতি, লুটপাট, মাদক কারবার, হত্যা, খুন, ধর্ষণ, বলাৎকার,বিদেশে টাকা পাচার এবং দেশের সাধারণ মানুষকে অধিকার বঞ্চিত করে হাতপাতা জাতিতে পরিণত করা কোন ভাবেই মেনে নিতে পারে না।পারিবারিক শিক্ষা আত্মসম্মনবোধ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ও কার্যকর ভূমিকার কালন করে। আজকের আধুনিক বিশ্বসভ্যতার সময়ে আমাদেরকে আত্মসম্মানবোধের সংকট থেকে বেড়িয়ে আসতে হবে। পারিবারিক দায়বদ্ধতা, সামাজিক দায়বদ্ধতা এবং জাতীয় দায়বদ্ধতার শিক্ষার ব্যাপক প্রচলনের মধ্য দিয়ে বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের মধ্যে আত্মসম্মানবোধের ব্যাপক প্রসার এবং জাগরণ ঘটানো সম্ভব। মনে রাখা দরকার আত্মসম্মানবোধ না থাকলে এক জাতি কখনোই সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ঐতিহাসিক, ভাষা এবং ঐতিহ্যগত দিক থেকে কখনোই উন্নতির শিকড়ে আরোহন করতে পারে না। আর একটি জাতি হিসেবে তা আমাদের কখনোই কাম্য হতে হতে পারে না। মানবিক শিক্ষা এবং বিজ্ঞান শিক্ষার ব্যাপক প্রসার ঘটাতে হবে। যার মধ্য দিয়ে দেশপ্রেম জাগ্রত হবে। দেশপ্রেমের মধ্যে আত্মসমানবোধ নিহিত থাকে। আত্মসম্মানবোধ সম্পন্ন ব্যক্তির পক্ষে কখনোই হাত পাতা, ঘুষ, চুরি, দুর্নীতি, লুটপাট, টাকা পাচার, মানব পাচার, হত্যা, খুন,ধর্ষণ, অন্যায়, অপকর্ম করা সম্ভব নয়। তাই আমাদেরকে ব্যক্তি, দেশ, জাতির লক্ষ্যে এবং আমাকে সোনার বাংলা গড়ে তুলতে উৎকৃষ্ট আত্মসম্মানবোধ গড়ে তোলার বিকল্প নেই। আসুন আমরা প্রত্যেকেই আত্মসম্মানবোধ সম্পন্ন হয়ে গড়ে উঠি এবং দেশ ও জাতির উন্নয়নে সক্রিয় অংশগ্রহণ করি।

সুধীর বরণ মাঝি, শিক্ষক, হাইমচর সরকারি মহাবিদ্যালয়, হাইমচর, চাঁদপুর।

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল rajdhanitimes24.com এ লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয়- মতামত, সাহিত্য, ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার ছবিসহ লেখাটি পাঠিয়ে দিন rajdhanitimes24@gmail.com  এই ঠিকানায়।

শীর্ষ সংবাদ:
ডিবি কার্যালয়ে হেফাজত নেতা মামুনুল হক যশোরে ভোট বর্জনের আহ্বানে বিএনপির লিফলেট বিতরণ নরসিংদীর মাধবদীর মাদক সম্রাজ্ঞী মায়া বেগম ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসহ গ্রেপ্তার, জনমনে স্বস্তি শ্রীনগর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যাগে কাপ-পিরিচ প্রতিকের বিশাল মিছিল অবশেষে শুরু হলো রাজশাহীর কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার নির্মাণ কাজ শেরপুরে ৫ আন্তঃজেলা গরু চোর গ্রেপ্তার শ্রীপুরে বজ্রপাতে নারীর মৃত্যু চলন্ত বাসে আগুন, ৮ জনের মৃত্যু ৮০ কিমি বেগে ঝড়ের পূর্বাভাস যেসব এলাকায় ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না আজ আমের সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে সজাগ থাকার পরামর্শ কৃষিমন্ত্রীর বাগেরহাটে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার প্রতিবাদ করায় হামলা, পিতাসহ আহত-৪ খাগড়াছড়িতে স্বর্ণালঙ্কারের লোভে শাশুড়িকে হত্যা, জামাই গ্রেপ্তার লালমোহনে স্বামী-স্ত্রীর লড়াই ১০ হাজারের বেশি বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাবে যুক্তরাজ্য কাউখালীতে মাছ-মাংসসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যর দাম সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে কুমিল্লায় বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে, ৫ জন নিহত যমুনা টিভিতে প্রচারিত সংবাদের বিরুদ্ধে সচেতন এবং সাধারণ শিক্ষক সমাজ ব্যানারে মানববন্ধন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অনুষদ ও বিভাগ ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তি  প্লাস্টিক বর্জ্যের বিনিময়ে পরিবেশ বান্ধব গাছ উপহার দিলো ঐক্য-বন্ধন